খাজা বাকী বিল্লাহ (রহ:) নিজের জানাজার ইমামতি নিজেই করেছেন।

ভাষান্তর: | বাংলা বাংলা English English हिन्दी हिन्दी العربية العربية

খাজা বাকী বিল্লাহ (রহ:) নিজের জানাজার ইমামতি নিজেই করিয়েছেন, কিন্তু কিভাবে?

হযরত খাজা বাকী বিল্লাহ (রহ:) এর একমুরিদ একদিন বললেন যে, হুজুর আমি অনেক দিন ধরে আপনার খেদমতে নিয়োজিত আছি, কিন্তু মারেফত কাকে বলে তা এখনও বুঝতে পারলাম না। হযরত খাজা বাকী বিল্লাহ (রহ:) তখন মুরিদকে বললেন যে, তুমি কি মারেফত দেখতে চাও না শুনতে চাও? মুরিদ বলল, আমি দেখতে চাই। তখন হযরত খাজা বাকী বিল্লাহ (রহ:) মুরিদকে বললেন যে, আমার ইন্তেকালের পরে আমার লাশ গোসল দিয়ে কাফন পড়িয়ে জানাজার জন্য অপেক্ষা করতে থাকবে। তখন দেখবে ঘোড়ায় চড়ে একজন লোক এসে আমার জানাজার নামাজ পড়াবে। তবে লোকটি জানাজার নামাজ শেষ করে যখন চলে যেতে চাবে তখন তাকে বলবে যে, মারেফত কাকে বলে? তাহলে তুমি মারেফত দেখতে পাবে।

সত্য সত্যিই যখন হযরত খাজা বাকী বিল্লাহ (রহ:) ইন্তেকাল করলেন তখন তার গোসল দিয়ে কাফন পড়িয়ে জানাজার নামাজের জন্য সবাই অপেক্ষা করছে। কিছুক্ষণ পর ঘোড়ায় চড়ে মুখ ঢাকা একজন লোক আগমন করলেন এবং জানাজার নামাজ পড়ালেন। লোকটি যখন চলে যাবে তখন মুরিদ তাকে বলল, যে হুজুর আমার পীর হযরত খাজা বাকী বিল্লাহ (রহ:) আপনার নিকট হতে মারেফত দেখতে বলেছেন। সঙ্গে সঙ্গে লোকটি তার মুখের কাপড় খুলে ফেললেন। তখন লোকটি তাকিয়ে দেখলেন যে, লোকটি আর কেউ নয়, স্বয়ং হযরত খাজা বাকী বিল্লাহ (রহ:) তার সামনে দাঁড়িয়ে আছে। তখন মুরিদ বলল হুজুর এটা কী? তখন হযরত খাজা বাকী বিল্লাহ (রহ:) বললেন যে, এটাই হলো মারেফত, যা তুমি দেখতে চেয়ে ছিলে।

বি:দ্র: শিক্ষনীয় কথাটি হলো মারেফত হলো ঐ জিনিস যা দ্বারা আল্লাহকে সনাক্ত করা যায়।

সুত্র: “ আউলিয়া কিরামের ক্ষমতা” ১ম খন্ড পৃ: ১২০।

error: অনুমতিহীন কপিকরা দণ্ডনীয় অপরাধ!