হোমপেজ খোদা ও নূরতত্ত্ব আল্লাহর নূর দ্বারা সর্বপ্রথম রাসূল (সাঃ) সৃষ্টির রহস্য।

আল্লাহর নূর দ্বারা সর্বপ্রথম রাসূল (সাঃ) সৃষ্টির রহস্য।

আল্লাহর নূর দ্বারা সর্বপ্রথম রাসূল (সাঃ) সৃষ্টির রহস্য।

“না ছিল আকাশ জমিন
আগুন আর হাওয়া পানি
সর্বময় ছিল শুণ্যকার।
সেদিন শূণ্যকারে মোর কাদেরগণি
অচেতন ছিলেন তিনি
জানতেন না আপন সমাচার।”

আল্লাহপাক গঞ্জে মুখফি স্বরুপ গোপন ছিলেন। এ অবস্থায় তিনি ছিলেন নিরব,নিস্ক্রিয়,স্থবির। তখন আকাশ-জমিন,চন্দ্র-সুর্য্,গ্রহ-নক্ষত্র,আরশ-কুরশী, লওহ-কলম ইত্যাদি কিছুই প্রকাশ ছিলো না। সবই ছিল আল্লাহপাকের জাতে মিশে। সেই অবস্থা হতে প্রথম জুলমাত এবং নূর সৃষ্টি করেছেন প্রকাশ হওয়ার জন্য এরাদা (ইচ্ছা) করলেন।

হযরত ইবনে আব্বাস (রা:) এর এক প্রশ্নের জবাবে রাসুলপাক (সা:) বলেছেন: আউয়ালু মা খালাকাল্লাহু নূরী। অর্থাৎ আল্লাহপাক প্রথম আমার নূর সৃষ্টি করেছেন।সৃষ্টি প্রকাশের পূর্বে শুধু জাতপাক আল্লাহই ছিলেন ”উলুহিয়াত দরিয়া” রুপে। তার কোন দোসর বা দ্বিতীয় কেই সাথে ছিল না। তখন নূরে মোহাম্মদী ছিলো তার পাক জাতে মিশে একই নাম ধারণ করে। সেই নিছক জাতপাক হতে প্রথম এরাদা হলো সৃষ্টির প্রকাশ করতে আর তখনই এশকের ঝংকার দিয়ে হলো দুয়ের বহি:প্রকাশ। যেমন সাগড় এবং তার ঢেও। এ অবস্থাটি অতিক্রম করতে চারটি স্তর অতিক্রম করতে হয়েছে এবং চারটি স্তরে চারটি কালাম প্রকাশ পেয়েছে। প্রতিটি স্তরেই এ নূর প্রথম বিকশিত হয়েছিল।

যেমন “আউয়ালু মা খালাকাল্লাহু নূরী” ইহা হাকিকতের জগতে হাকিকতে নূরে মোহাম্মদরি গভীর কেন্দ্র স্থিত আছে। “আউয়ালু মা খালাকাল্লাহু নূরী” -ইহা মারিয়েতের মোকামে প্রথম নূরে মোহাম্মদী। ইহা সুক্ষ রুপ জগতের প্রথম প্রকাশ।“আউয়ালু মা খালাকাল্লাহু আকল” – নূরে মোহাম্মদীর এ প্রকাশটি হলো প্রথম আলমে আরওয়ার মাঝে-যা সুক্ষ রুপে প্রকাশ। এ স্তরে এসেই-প্রশ্ন করা হযেছিলো”আলস্তবে রাব্বেকুম” এ প্রশ্নের জবাবটি দেওয়া হয়েছিল চারভাগে বিভক্ত হয়ে।

প্রথম: যারা দীলে মুখে স্বীকার করেছিলো”কালুবালা শাহেদনা”এরা নবী রাসুল,ওলি আউলিয়া বা মুমিন বান্দা। দ্বিতীয়: যারা দীলে স্বীকার করেছিলো, কিন্তু মুখে কিছু বলেনি,এরাও ঈমানদার মুসলমান। তৃতীয়: যারা মুখে জবাব দিয়েছিলো কিন্তু অন্তরে জবাব ছিলো না বা স্বীকৃতি ছিলো না, এরা হলো মুনাফেক। চতুর্থ: যারা দীলে মুখে কোনভাবেই স্বীকার করেনি, এরা হলো কাফের- (সুরা আরাফ ১৭২ আয়াত দ্রষ্টব্য:)। “আউয়ালু মা খালাকাল্লাহু কালাম”। এ অবস্থাটি লওহে মাহফুজের লিখিত ভাষার সাথে জড়িত আছে। এ লওহ মাহফুজই হলো প্রথম প্রকাশিত স্থান। পাক জাতের ভিতর নূর-এ নবী মুরিদুন রুপে গোপন ছিলেন। আসলে সবই তার পাক জাতেরই রুপ। কারণ আজ্জাতু কুললুহু মুরিদুন মানে জাতের সমস্তটাই হলো এশক চিন্তা বা কল্পনা।

গ্রন্থসূত্র: আসসারে রজ্জব।