হোমপেজ আধ্যাত্মিক কবিতা সৈয়দ মামুন চিশতীর আধ্যাত্মিক বাণী (পর্ব-৩)

সৈয়দ মামুন চিশতীর আধ্যাত্মিক বাণী (পর্ব-৩)

সৈয়দ মামুন চিশতীর আধ্যাত্মিক বাণী (এলহামে এলাহী)

২১//
স্বাস্ত্রভেদ যতই পড়ি,
আপনা হতে যাই দূরে সরি।
গুরু ঘাটে বেঁধে তরী,
সদায় করো মন বিহারী।

২২//
সাকারে যে ভজে খোদারে,
প্রভু দেখার ক্ষুধা-তৃষ্ণা ধরে না তারে।
মুর্শিদের রঙ্গে যে জন রাঙ্গা হয়রে,
প্রভু নিজে তাঁহার সঙ্গ লাভ করে।

২৩//
কৃষ্ণ কিন্তু একা কারোও নয়,
তাইতো তাঁরে লক্ষ কোটি গোপীয়েও পায়।
যে রাধা সাঁজে, তাতে-ই কৃষ্ণ বাধা রয়।

২৪//
তারাহুড়ায় বাইতে গিয়া তরী ডুবাইলি তীরে,
ধীরস্থিরে বাইতে জানলে পৌছাইতি রূপগঞ্জের কুঠিরে।

২৫//
নয়নের বরিষণ, সিক্ত করে শ্রী চরণ।
সব ছেড়ে ভজে যে জন,দৈবজ্ঞানে কয় মহাজন,
সে হয় আমার, হই আমি তার, অতিশয়-আপন।

২৬//
খানায়ে কাবা যদি হয় আল্লাহ্’র ঘর,
কে বলে আল্লাহ নিয়াকার?
আকারহীন প্রভুর, ঘরের কি দরকার?

সৈয়দ মামুন চিশতীর আধ্যাত্মিক বাণী

২৭//
নিয়াকার খোদারে যদি দেখতে জাগে বাসনা
অলী-আল মুর্শিদ ধরে কর তাঁহার ভজনা
মুর্শিদ সুরতে তুমি খোদাতে হইবা ফানা
আপন রব জানিয়া রে মন লাব্বাঈক একবার বল না।

২৮//
আল্লাহ হতে মুর্শিদকে ভাবিলে জুদা,
এই জীবনে মিটিবে না তোর আল্লাহ্ দেখার ক্ষুধা!

২৯//
যে নামে-ই ডাকো তাঁরে,
সে থাকে কেবল এঁকের ঘরে।
মিলে দৃঢ় ভক্তির জোড়ে,
ভক্তি, বিশ্বাস, প্রেম নইলে,
কাছের মানুষও যায় দূরে সরে।

৩০//
বিশ্বাস ভক্তিতে থাকিলে অভাব,
মিলিবে না তোর মাওলাজীর স্বভাব।
এঁকেরশ্বর বাদী যদি হয়ে যাও বাপ,
ঝরে যাবে তোর যত তাপিত দেহের পাপ।

বাণী: সৈয়দ মামুন চিশতী

» সৈয়দ মামুন চিশতীর আধ্যাত্মিক বাণী (সব পর্ব)