হোম আধ্যাত্মিক প্রশ্ন ও উত্তর আধ্যাত্মিক প্রশ্নোত্তর (পর্ব-১২)

আধ্যাত্মিক প্রশ্নোত্তর (পর্ব-১২)

ভাষান্তর: Bangla | English | Hindi | Arabic | Persian

আধ্যাত্মিক প্রশ্নোত্তর (পর্ব-১২)

৫৯.
শিষ্যঃ প্রভু কাম দমন করব কিভাবে?

গুরুঃ কাম দমন করা সহজ কথা নয়, চাইলেই কাম দমন সম্ভব নয়। এতে গুরুর কৃপা প্রয়োজন। যখন তুমি সত্যকে দর্শন করবে, নিজেকে চিনতে পারবে, যখন তোমার আত্মজ্ঞান হাসিল হবে এবং তুমি আত্মদর্শন করবে তখনই কামকে দমন করতে পারবে। যখন তুমি পূর্ণ ভাবে বুঝবে ও বিশ্বাস করবে যে এই দুনিয়ার মায়া ও মোহ সব কিছু মিছে, এগুলো কিছুই তোমার কাজে আসবে না, যখন তুমি বুঝতে পারবে এই দুনিয়ার কিছুই তোমার নয়, এমনকি তুমি নিজেও তোমার নও, সুতরাং এই মায়া মোহ সবই অর্থহীন, যখন বুঝবে কেউ তোমার নয়, তুমি মিছেই মায়াজালে বন্দী হয়ে ষড়রিপুর দাস হয়ে পরিবা হচ্ছ, তখনই কামনা থেকে তোমার মুখ ফিরে আসবে।

৬০.
শিষ্যঃ প্রভু কাম থেকে নাকি প্রেমের উৎপত্তি। তাহলে কামে আমার অবনতি কেন হবে?

গুরুঃ কাম থেকে প্রেমের উৎপত্তি এটা সত্য। কিন্তু প্রেম জাগ্রত হয়ে গেলে আর সেখানে কাম থাকেনা।

৬১.
শিষ্যঃ কিন্তু সেটা কিভাবে প্রভু? আমাকে কৃপা করে বুঝিয়ে বলুন।

গুরুঃ কাম তথা বাসনা থেকেই প্রেম জাগ্রত হয়। ধরো তুমি কোনো সুন্দর রমনীকে দেখতে পেলে, তখন তোমার মাঝে কাম জাগ্রত হল, তুমি তার রূমে আস্তে আস্তে মুগ্ধ হতে লাগলে এবং প্রতিনিয়ত তার প্রতি দুর্বল হতে থাকলে। এই সুন্দর রূপের লালসায় তুমি তার প্রেমে পরে যাবে অতি শীঘ্রই। এক পর্যায়ে তাকে তুমি প্রচন্ড ভালবেসে ফেললে। তোমাদের বিয়ে হল, হঠাৎ কিছুদিন পর দেখা গেল কোনো রোগের কারনে সেই রমনীর সেই রূপ লাবন্য নষ্ট হয়ে গেল। কিন্তু সেই রমনীর প্রতি তোমার যে প্রেম, তা কিন্তু নষ্ট হবে না যদি তাকে সত্যিকারের ভালবেসে থাকে। কিন্তু তোমার এই প্রেম জাগ্রত হয়েছিল তার রূপ দেখেই। তখন তার বিশ্রী চেহারায় তুমি সৌন্দর্যতা খুঁজে পাবে, কারন তুমি এখন তাকে ভালবাসো। বিষয়টা অনেকটা দুধ আর দুধি বা দইয়ের মত বা ঘি ও মাঘনের মত। দুধ থেকেও দই হয়, কিন্তু দই জমলে আর দুধ থাকে না। দুধ থেকেও মাঘন হয়, কিন্তু মাঘন হয়ে গেলে আর দুধ থাকেনা, মাঘন থেকেই ঘি হয়, কিন্তু ঘি হয়ে গেলে আর মাঘন থাকেনা।

৬২.
শিষ্যঃ কিন্তু প্রভু দই বা দুধিতে তো দুধ থেকে যায় সুপ্ত ভাবে, শুধু দুধের রূপান্তর ঘটে দই বা দধিতে। প্রেমের মধ্যেও কি তবে কাম লুকিয়ে থাকে সুপ্ত হয়ে?

গুরুঃ ঠিক ধরেছো। কামই প্রেমে রূপান্তর হয়ে যায়। কামের মাঝেই প্রেম আর প্রেমের মাঝেই কাম সুপ্ত হয়ে থাকে। কামুক প্রেম জাগ্রত করতে না পারার কারনে সারাজীবন কামেই ডুবে থাকে। আর প্রেমিক কাম থেকেই প্রেমকে জাগ্রত করে তুলে কাম থেকে নিজেকে সম্পূর্ন মুক্ত রাখে।

৬৩.
শিষ্যঃ প্রভু সংসারে থেকেও কি মুক্তি লাভ করা যায়?

চলবে..

» পরবর্তী পর্ব শুলো দেখুন

লেখাঃ DM Rahat

পূর্ববর্তী পোস্টআধ্যাত্মিক প্রশ্নোত্তর (পর্ব-১১)
পরবর্তী পোস্টমা ফাতেমা (আঃ) এঁর ২০টি অমিয় বাণী।
"আমি মানুষেরেই পূজি, মানুষের মাঝেই আমি আল্লাহ-গড-ভগবানকে খুঁজি।"

এই পোস্টে একটি মন্তব্য করুন:

আপনার মন্তব্য লিখুন!
এখানে আপনার নাম লিখুন