Tuesday, 9 Mar 2021

দেহতত্বের ব্যবহৃত সকল শব্দের অর্থ সমূহ (সূফিতত্ব)।

ভাষান্তর: | বাংলা বাংলা English English हिन्दी हिन्दी العربية العربية

দেহতত্বের ব্যবহৃত সকল শব্দের অর্থ সমূহ। (সূফিতত্ব)

সূফী সাধকগনেরা বলে থাকেন, “যাহা আছে বিশ্বভ্রমান্ডে তাহার হইতে অধিক আছে এই মানব দেহে।” ইহার হাকিকত সম্পর্কে আজকে আলোচনা করা হবে।

মানবদেহের প্রতিটা অঙ্গ ও নামের পরিভাষা।

১. আরশ = মন।
২. কুরসী = দেহ।
৩. লওহে মাহফুজ = স্মৃতি রাজ্য।
৪. আসমান = মাথা।
৫. জমীন = শরীর।
৬. পাহাড় = বুক।
৭. স্বর্গলোক = মাথা।
৮. ভূলোক = দেহ জগত।
৯. অন্তরিক্ষ লোক = হৃদয় বা ব্যুম।
১০. সিদরাতুল মুনতাহা = কপাল দেশ।
১১. বাইতুল মামুর = পূর্নাঙ্গ মানবদেহ
১২. জাহান্নাম = পেট থেকে নিম্নদেশ
১৩. জান্নাত = বুক থেকে উপর দেশ
১৪. পুলসিরাত = কামের ঘাট (প্রকৃত পক্ষে জান্নাত ও জাহান্নামের মানসিক অবস্থা)।
১৫. জিহবাতে অবস্হান = জিব্রাঈল।
১৬. নাকতে অবস্হান = ঈস্রাফিল।
১৭. কান ও চোখে অবস্হান = মেকাঈল।
১৮. মনি মগজে অবস্হান = আজরাঈল।
১৯. দেহের মক্কা = দিল।
২০. দেহের মদীনা = ক্বলব।
২১. দেহের কাবা = মুখ মন্ডল।
২২. দু’হাত ও দু’পা = মরু অঞ্চল।
২৩. রক্ত নালী = নদী নালা।
২৫. সারা দেহ রক্ত পানি = সাগর।
২৬. মানুষের শরীর পশম = গাছ।
২৭. গুপ্ত অঙ্গ ও বগল = বন।

কর্ম সাধনের ক্ষেত্রে ব্যাবহৃত শব্দগুলোর অর্থ।

১. জাকাত = আমিত্ব বিসর্জন বা গঞ্জমালের শুদ্ধি।
২. হজ্ব = আত্মদর্শন।
৩. কবর = মাতৃগর্ভ।
৪. পুলছিরাত = ধর্মের পথ।
৫. জান্নাত = পরমানন্দ।
৬. জাহান্নাম = আত্মগ্লানি।
৭. রুহানি জগৎ = আলমে আরওয়া।
৮. রুহ = আদেশ ঘটিত হাওয়া দম।
৯. নফছ = স্বভাব।
১০. স্বাধন = গুরু বাক্য ধারণ করে কর্ম সম্পাদন করা।
১১. নিহার = গুরু ছবি দু নয়নে রেখে নত শিরে পথ চলা।
১২. জপ মালা = গুরু নাম মনে ধারণ করে নিঃশ্বাসে প্রশ্বাসে আনয়ন করা।
১৩. গুরু মন্ত্র = গুরু যে বাক্য দিবেন।
১৪. রং মহল = মুখ মন্ডল।
১৫. স্বর্ণ মহল = বুক।
১৬. আয়না মহল = চোখ।
১৭. মনি মহল = মনি মগজ।
১৮. আরশ = মন।
১৯. কুরসী = দেহ।
২০. লৌহ মাহফুজ = স্থিতি রাজ্য।
২১. হাসর = পরিনামের মাঠ।
২২. মিজান = বিবেক।
২৩. হুর = স্ত্রী।
২৪. গেলেমান = স্বামী।
২৫. পৃথিবী = মানব দেহ!

উপরোক্ত এই শব্দগুলো লালন সাঁইয়ের প্রতিটা গানের লাইনে-লাইনে আমরা দেখতে বা শুনতে পাই। এবং তিনার প্রতিটা গানের বিশ্লেষণ করতে গেলে শব্দ গুলোর হাকিকত ঠিকই মিলে যায়। কেননা ইহা সাধকগনেরই বিশ্লেষণ।

আসলে ইলমে তাসাউফ অর্থ্যাৎ সূফিসাধকগনের বাক্য ইশারাপূণ্য। একমাত্র আত্মা ও দেহের সন্ধানী ব্যাক্তিরাই এই ইশারাপূণ্য বাক্য গুলোকে সহজেই বুঝতে পারে।

বিঃদ্রঃ পোস্টটি শুধুমাত্র তাদের জন্যই, যাহারা আত্মদর্শন ও আত্মপরিচয় লাভের উদ্দেশ্যকারী।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

error: অনুমতিহীন কপিকরা দণ্ডনীয় অপরাধ!
Copy link
Powered by Social Snap