হোম আত্ম সচেতনতা ধর্ম বড় নয়, মানুষ বড়।

ধর্ম বড় নয়, মানুষ বড়।

ধর্ম বড় নয়, মানুষ বড়।

সবার উপরে মানুষ সত্যে তাহার উপরে নাই। ধর্ম মানুষকে শুদ্ধ করার একটি প্রক্রিয়া। আর ধর্ম নিজেই শান্তি। ধর্ম যেখানে সংস্থাপন হয় সেখানেই শান্তির সুবাস ছড়িয়ে পড়ে। পৃথিবীর প্রত্যেকটি ধর্মের আগমন হয়েছে মানুষকে পবিত্র করার নিমিত্তে। পৃথিবীর কোনো ধর্মই অশান্তির বার্তা দেয় নাই। আর অশান্তির বার্তা থাকলে সেটা ধর্ম হয় না। শ্রষ্টার মনোনীত দ্বীন তথা ধর্ম তথা ফিতরাত হল শান্তি। পৃথিবীর সকল মাহাপুরুষ ও মানবহিতৈষীগণ তাঁরা একটি বানীই প্রচার করেছেন, সেই বানী হল শান্তি তথা ইসলাম। এই শান্তি প্রচারের জন্য মহাত্মাগণ বিভিন্ন প্রয়োগপদ্ধতি প্রদান করেছেন। প্রায়োগিক বিধান যা ই হোক না কেন সকল মহাত্মাগনের মূলবানী বা দর্শন হল শান্তিস্থাপন। প্রত্যেক ধর্ম দর্শনেই নিজেকে জানবার, চিনবার, নিজেকে পবিত্র করবার, নিজের পরিচয় খোজার এবং নিজের মধ্যে থেকে বদগুণ ত্যাগ করে, সৎগুন স্বভাবে ধারণ করার শিক্ষাই দিয়েছেন।

২ লক্ষ ২৪ হাজার মতান্তর ৩ লক্ষ ৩৪ হাজার নবী- রসুল ও অবতার ১০৪ খানা সহিফা নিয়ে আসেন। এর একটিই কারন, তা হল মানুষের মধ্যে শান্তিসংস্থাপন ও মানবতার আদর্শ মনুষ্যত্ববোধকে জাগিয়ে তোলা। অন্যকোনো উদ্দেশ্য নয়।তাই আল্লাহ পাক কোরানের ২২ নং সুরার হজ এর ৬৭ নং আয়াতে ইরশাদ করেন: “প্রত্যেক কওমের জন্য/প্রত্যেক সমপ্রদায়ের জন্য/প্রত্যেক জাতীর জন্য আমরা(আল্লাহ) রাখিয়া দিয়াছি ইবাদত পদ্ধতি/এবাদতের নিয়ম, তাহারা সেই নিয়ম অনুসরণ করে, সুতরাং আপনার (সঙ্গে) তর্ক না করে এই হুকুমের মধ্যে এবং আপনি ডাকুন আপনার রবের দিকে, নিশ্চয়ই আপনি সঠিক পথের উপর অবশ্যই (আছেন)”।

(অনুবাদ :আল্লামা জাহাঙ্গীর ও ইসলামি ফাউন্ডেশন)

সুতরাং আমরা মানুষরাই নিজেদের স্বার্থসিদ্ধি করার জন্য, নিজেদের দৃষ্টিভঙ্গিগতকারনে ধর্মকে বিভিন্ন শাখা উপশাখায় ভাগ করেছি। আসলেই ধর্মের মূল সত্য, শান্তি ও সুন্দর। যেখানে সত্য, সুন্দর ও শান্তি আছে,  সেখানেই আমার ধর্ম তথা স্বভাব অর্জনের শিক্ষা রয়েছে। পৃথিবীর প্রত্যেকটি ধর্মগ্রন্থই মানবজাতীর সম্পদ।
আমরা এই সম্পদ কাজে লাগিয়ে কল্যানের দিকে, প্রগতির দিকে ও মুক্তির প্রানে ধাবিত হব। আসলেই প্রত্যেক ধর্মের উদ্দশ্যে বহু নয়, একটিই। সেই উদ্দেশ্যটি আপন নফসকে মায়া তথা খান্নাস নামক শয়তানের ১৯ প্রকার ধোকা হতে মুক্ত করে নেওয়া, নিজের উপর সন্তুষ্টি অর্জন করা আর আপন রবের পরিচয় অর্জন করা। ইহাই পৃথিবীর সকল ধর্মের মূল শিক্ষা। ইহাই সর্বজনীন শিক্ষা। ইহাই মানবতার শিক্ষা। ইহাই সত্য শিক্ষা।

(আর এফ রাসেল আহমেদ)

পূর্ববর্তী পোস্টকবিতা : পাপ
পরবর্তী পোস্টসবকিছুর মূল হোতাই তুমি অব্যয়
Quranik philosophy and sufism.

এই পোস্টে একটি মন্তব্য করুন:

আপনার মন্তব্য লিখুন!
এখানে আপনার নাম লিখুন