হোমপেজ বাণী ও উপদেশ লোকমান হাকিম (আঃ) এর উপদেশ

লোকমান হাকিম (আঃ) এর উপদেশ

লোকমান হাকিম (আঃ) এর উপদেশ

(১) অন্যকে উপদেশ দেওয়ার আগে নিজে আমল করার চেষ্টা কর।

(২) যা জান না, সে বিষয়ে কাউকে পথ দেখাতে যাবে না।

(৩) নিজ সন্তানদের ‘ইলম’ ও ‘আদব’ শিক্ষা দেবে।

(৪) জাতি-ধর্ম ও সমাজের সঙ্গে সম্পর্ক বা মিলেমিশে চলবে।

লোকমান হাকিম (আঃ) এর উপদেশ
লোকমান হাকিম (আঃ) এর উপদেশ

(৫) ‘কম আহার’, ‘কম নিদ্রা’ ও ‘কম কথা’ বলার অভ্যাস করবে।

(৬) কণ্ঠ নিচু করো। নিঃসন্দেহে গাধার স্বরই সর্বাপেক্ষা অপ্রীতিকর।

(৭) সুযোগ বুঝে কথা বলবে এবং প্রয়োজনীয়টুকু বলার জন্যই মুখ খুলবে।

(৮) যৌবনকালকে সুবর্ণ সুযোগ মনে করবে।

লোকমান হাকিম (আঃ) এর উপদেশ
লোকমান হাকিম (আঃ) এর উপদেশ

(৯) গোপন কথা কারো নিকট প্রকাশ করিবে না।

(১০) বিচক্ষণ এবং জ্ঞানী ব্যক্তিদের সাথে বন্ধুত্ব করবে।

(১১) ঋণ হইতে নিজেকে হেফাজাত রাখিও। কেননা ইহা দিনের বেলায় অপমান এবং রাত্রিতে দুশ্চিন্তা।

(১২) অনর্থক কথাবার্তা থেকে মুক্ত থাকবে।

লোকমান হাকিম (আঃ) এর উপদেশ
লোকমান হাকিম (আঃ) এর উপদেশ

(১৩) জ্ঞানী ও সচেতন লোকজনের সঙ্গে ওঠাবসা  করবে।

(১৪) মানুষের সামনে কাউকে লজ্জা দেবে না।

(১৫) অহংকারবশে তুমি মানুষকে অবজ্ঞা কোরো না।

(১৬) সৎ কাজে আদেশ দাও, মন্দ কাজে নিষেধ করো।

লোকমান হাকিম (আঃ) এর উপদেশ
লোকমান হাকিম (আঃ) এর উপদেশ

(১৭) নিজের গোপনীয়তা কারও কাছে প্রকাশ করবে না।

(১৮) বিপদাপদে সবর করো। নিশ্চয়ই এটা সাহসিকতার কাজ।

(১৯) বুদ্ধিমতী নয় এমন নারীদের ওপর ভরসা করবে না।

(২০) বন্ধু ও শত্রু উভয়ের সঙ্গেই হাসিমুখে অবস্থান করবে, কথা বলবে।

লোকমান হাকিমের ঈর্শ্বান্বিত ব্যাক্তির দোষ সম্পর্কে বাণী